কয়েক দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় হয়ে গেল এ বছরের ‘গুগল আই/ও’। সফটওয়্যার বিষয়ক এই বার্ষিক সম্মেলনে গুগল তাদের নতুন সব সফটওয়্যার হালনাগাদ ও ফিচার তুলে ধরে। সেসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য অংশই স্মার্টফোনসংক্রান্ত। বিস্তারিত জানুন

ফটোজ এআই-এ নতুনত্ব

নিজ থেকেই ছবির মান বাড়ানো, কোলাজ তৈরি, সময়কাল বা ছবির অবস্থান ব্যবহার করে নিজেই অ্যালবাম তৈরি থেকে শুরু করে ছবি থেকে এনিমেশনও গুগল ফটোজের এআই তৈরি করতে পারে। এবার তা নতুন মাত্রায় নিয়ে যেতে যুক্ত হচ্ছে সাদা-কালো ছবি রঙিন করা আর বিষয়বস্তুর পেছনের অংশ সাদা-কালো করে দেওয়া। দুটি সম্পাদনাই ব্যবহারকারীদের জন্য এর মধ্যেই উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। তবে নিজের বাছাই করা ছবিতে ইফেক্টগুলো দেওয়া যাবে না, গুগল নিজ থেকেই ছবি বাছাই করে সম্পাদনাগুলো করে দেখাবে। পুরনো স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে সাদা-কালো ছবি রঙিন করা বা বিষয়বস্তু ফুটিয়ে তুলতে পেছনের অংশ সাদা-কালো করে দেওয়ার ইফেক্ট দুর্দান্ত জনপ্রিয়তা পেতে পারে। ফিচারগুলোর দেখা মিলবে গুগল ফটোজ অ্যাপের অ্যাসিস্ট্যান্ট ট্যাবে।

 

গুগল নিউজ

সংবাদমাধ্যম আর ম্যাগাজিন পড়া ও কেনার সেবা গুগল প্লে নিউজস্ট্যান্ড এখন গুগল নিউজ সেবা হয়ে গেছে। ব্যবহারকারীরা যাতে খবর আরো সহজে পড়তে পারেন ও মনমতো বিষয়ের ওপর লেখা প্রবন্ধ ও সংবাদ আরো বেশি করে পান, সেদিকে খেয়াল রেখে নতুন সেবাটি সাজানো হয়েছে। ফোনে অ্যাপ চালু করলেই প্রথম পাঁচটি জরুরি সংবাদ ব্যবহারকারীর সামনে তুলে ধরা হবে। এর মধ্যে কোনটি স্থানীয় সংবাদ সেটিও বলা থাকবে। খবর খোলার পর একই সংবাদের অন্য গণমাধ্যমের রিপোর্টও দেখা যাবে, যাতে খবরের এপিঠ-ওপিঠ পুরোটাই জানা যায়। এই ফিচারটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ফুল কাভারেজ’।

এ ছাড়া লিখিত সংবাদের পাশাপাশি খবরের ইউটিউব ভিডিও দেখা যাবে। সেগুলো ভিডিও সংবাদ আকারে ফিডে দেওয়া হবে। ব্যবহারকারীরা তাঁদের পছন্দের বিষয়ের ওপর সংবাদমাধ্যমের সাবস্ক্রিপশন নিতে পারবেন। এর মধ্যে অনেকগুলোর জন্য অবশ্য মাসিক ফি দিতে হবে।

 

গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের নতুন সব সুবিধা

ফোন ব্যবহারে নতুন মাত্রা হিসেবে অ্যাসিস্ট্যান্টকে দেখে গুগল। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা খাটিয়ে দৈনন্দিন কাজে সহায়তা করার জন্য তৈরি সেবাটি আজ প্রায় যেকোনো অ্যানড্রয়েড ফোন থেকেই ব্যবহার করা যায়। গুগল আই/ও ২০১৮-তে সেটির বেশ কিছু নতুন ফিচার দেখানো হয়েছে

 

গুগল ডুপ্লেক্স

কাউকে প্রশ্ন করে তার উত্তর শুনে, বুঝে, সেই অনুযায়ী পরবর্তী প্রশ্ন করে প্রয়োজনীয় কাজ করতে পারবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট। এই ফিচারটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ডুপ্লেক্স’। গুগলের এবারের সম্মেলনে দেখানো হয়েছে, ব্যবহারকারীর চুল কাটার জন্য সেলুনে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিতে ফোন করে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট। তারপর সেলুন কখন খোলা আছে জেনে নিয়ে অ্যাপয়েন্টমেন্ট করে ব্যবহারকারীকে অবহিত করে। যদিও এ রকম কাজ অ্যাসিস্ট্যান্ট এখনই করতে না পারলেও ধীরে ধীরে গুগল ডুপ্লেক্সের দিকে এগোছে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট। আপাত গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের মাধ্যমে ফোন করে কোনো প্রতিষ্ঠান খোলা আছে কি না জেনে নেওয়া যাবে।

 

গুগল লেন্স

ক্যামেরা কাজে লাগিয়ে সামনে কী আছে দেখে চিনে নেওয়ার সুবিধাও অ্যাসিস্ট্যান্টে যুক্ত করা হয়েছে। লেন্স নামের ফিচারটি আগে গুগল ফটোজের মধ্যে দেওয়া হয়েছিল। ফোনে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট চালু করে, লেন্স বাটনে টাচ করলে ফিচারটি চালু হবে। তারপর ক্যামেরার সামনে থাকা বিশিষ্ট দালানকোঠা, মূর্তি, ছবি, লেখা, বারকোড, এমনকি গাছপালা ও প্রাণীর নাম বলে দিতে পারবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট। গুগল লেন্স এখনো পরীক্ষাধীন। তবে ভবিষ্যতে যে এটি প্রচণ্ড শক্তিশালী ও কার্যকর ফিচার হবে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

 

নতুন কণ্ঠস্বর

এত দিন পর্যন্ত গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের জন্য বরাদ্দ ছিল মাত্র দুটি কণ্ঠস্বর, যার মধ্যে নারী কণ্ঠস্বরটিই মূলত ব্যবহার করা হতো। চাইলে পুরুষ কণ্ঠস্বরও চালু করা যেত। এবার অ্যাসিস্ট্যান্টকে নিজের মতো করে বাছাই করা আরো স্বাধীনতা দিতে যুক্ত করা হয়েছে আরো নতুন ছয়টি কণ্ঠস্বর। সর্বমোট আটটি কণ্ঠস্বরের মধ্যে চারটি নারী আর চারটি পুরুষ কণ্ঠস্বর। শুধু তা-ই নয়, অ্যাসিস্ট্যান্টের সঙ্গে বিভিন্ন জাতির ভিন্ন ভিন্ন বাচনভঙ্গিতেও কথোপকথন করা যাবে আরো সহজে।

 

সাবলীল কথাবার্তা চালাতে পারবে অ্যাসিস্ট্যান্ট

বারবার ‘ওকে গুগল’ বা ‘হেই গুগল’ বলে অ্যাসিস্ট্যান্টকে ডাকার সমস্যাটি বিদায় জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। সরাসরি ‘হেই গুগল’ বলার সময়ই প্রশ্ন করলে সহজেই বুঝে নিয়ে উত্তর দিতে পারবে গুগল। আবার কথার মাঝখানে সাবলীলভাবে কিছু প্যাঁচানো বাক্যও বলতে পারবে, যেমনটি সাধারণত একটি মানুষ বলে থাকে। শুধু তা-ই নয়, বছরের শেষ নাগাদ শিশুদের ভদ্রতা করে ‘প্রিটি প্লিজ’ ও ‘থ্যাংক ইউ’ বলানোর অভ্যাস করার সুবিধাও যুক্ত করা হবে।

 

অ্যানড্রয়েড পি’র যত নতুন

জনপ্রিয় অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের নতুন সংস্করণ আসছে শিগগিরই। নতুন আপডেটে কী কী ফিচার যুক্ত করা হবে, তা গুগল আই/ওতে তুলে ধরা হয়েছে। ফোন ব্যবহার যাতে আরো সহজ হয় আর দৈনন্দিন কাজ দ্রুত সেরে নেওয়া যায় তার ওপরই জোর দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়।

 

সবখানে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা

গুগলের ডিপমাইন্ড এআই ব্যবহার করে ব্যবহারকারীরা ঠিক কী কাজে, কখন, কিভাবে ফোন ব্যবহার করেন বিশ্লেষণ করা হবে। তার ওপর ভিত্তি করে ফোনের ব্যাটারি, ডাটা ও প্রসেসিং ক্ষমতা প্রয়োগ করা হবে, যাতে সময়ও বাঁচে আবার ডাটা ও ব্যাটারির ওপর অতিরিক্ত চাপও না পড়ে। অ্যাডাপটিভ ব্যাটারি ফিচারটি যেসব অ্যাপ খুব বেশি ব্যবহার করা হয় না, সেগুলো বন্ধ রেখে বাড়াবে ব্যাটারি লাইফ। শুধু দৈনন্দিন ব্যবহারের অ্যাপই সব সময় চালু রাখা হবে। সময় ও অবস্থানভেদে ব্যবহারকারীরা কোথায় ফোনের ব্রাইটনেস কমান বা বাড়ান, সে তথ্য ব্যবহার করে অ্যাডাপটিভ ব্রাইটনেস আরো নির্ভুলভাবে ফোনের স্ক্রিনের ঔজ্জ্বল্য নিয়ন্ত্রণ করবে। কোন কাজের পর কোন কাজ করা হতে পারে, সে অনুযায়ী নিজ থেকেই অ্যাপ চালু বা বন্ধ করার জন্য মেসেজ দেবে অ্যানড্রয়েড পি। যেমন—গুগলে যদি কোনো সিনেমা খোঁজা হয়, তাহলে পরবর্তী ধাপ হতে পারে কাছাকাছি কোন থিয়েটারে সেটি তা সার্চ করা। সে অনুযায়ী ম্যাপস অ্যাপ খোলার জন্য মেসেজ দেওয়া হবে।

সবশেষে আছে অ্যাপ স্লাইস। যেমন—ম্যাপসে কোনো জায়গায় যাওয়ার জন্য সেটি সার্চ করা হলে ম্যাপসের মধ্যেই উবার অ্যাপের ভাড়া কত আসতে পারে দেখানো হবে। এভাবে এক অ্যাপে অন্য অ্যাপ আংশিকভাবে ব্যবহার করে বাড়ানো যাবে মাল্টিটাস্কিং গতি।

 

ইন্টারফেইস হবে সহজ-সরল

অ্যানড্রয়েডের চিরচেনা নেভিগেশন বার এবার বদলে যাচ্ছে। তিনটি বাটনের বদলে এখন থাকবে দুটি বাটন বা একটি বাটন, যা টেনে ডানে বা বাঁয়ে নিয়ে ব্যাক ও মাল্টিটাস্কিং করা যাবে। ইন্টারফেইসের বেশির ভাগই কিছুটা গোলাকৃতির করা হয়েছে। বদলে গেছে অ্যাপ নির্বাচনের তালিকাও। আগের মতো ওপর-নিচ না করে চলমান অ্যাপের তালিকা পাশাপাশি স্ক্রল করা যাবে। কোন অ্যাপের স্ক্রিন রোটেট করবে বা করবে না, তা এবার বেঁধে দেওয়া যাবে। নতুন করে সাজানো হয়েছে সেটিংস ও অন্যান্য মেন্যুও।

 

স্বাস্থ্যের দিকে নজর

স্মার্টফোন আসক্তি বড় ধরনের সমস্যা। সেটি মোকাবেলা করতে বেশ কিছু ফিচার অ্যানড্রয়েডে যুক্ত করা হচ্ছে। নতুন একটি ড্যাশবোর্ড যুক্ত করা হয়েছে, যেখানে প্রতিদিনের স্মার্টফোন ব্যবহারের হিসাব-নিকাশ রাখা হবে। কত ঘণ্টা স্ক্রিন চালু ছিল, কোন অ্যাপ কত সময় ব্যবহার করা হয়েছে, এসব যে শুধু জানাই যাবে তা নয়, কোন অ্যাপ দিনে কত ঘণ্টা ব্যবহার করা যাবে তা বেঁধেও দেওয়া যাবে।

‘ডু নট ডিস্টার্ব’ মোড এখন থেকে চাইলে ফোন উপুড় করে রাখলেই নিজ থেকে চালু হবে। রাতে ঘুমানোর প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য দেওয়া হয়েছে ‘ওয়াইন্ড ডাউন’ মোড। এতে ঘুমের সময় সেট করে দিলে, সে সময়ের বেশ কিছুক্ষণ আগ থেকেই ফোনের স্ক্রিন থেকে সরানো হবে নীল আলো। শেষ পর্যন্ত স্ক্রিন হয়ে যাবে সাদা-কালো। ফোন ব্যবহার নিরুৎসাহী করতেই এই মোড দেওয়া হয়েছে।

 

গুগল ম্যাপস

গুগল ম্যাপসে যুক্ত করা হয়েছে ‘ফর ইউ’ শাখা। এখানে ব্যবহারকারীদের পছন্দ ও আগে যেসব স্থানে গিয়েছেন তার ওপর ভিত্তি করে আশপাশে থাকা নতুন রেস্টুরেন্ট, সেবা প্রতিষ্ঠান ও দোকান বা শপিং মলের নাম দেওয়া হবে। এ ছাড়া কাছাকাছি নতুন কোনো রেস্টুরেন্ট বা প্রতিষ্ঠান ভাইরাল হয়ে গেলে সেখানে যাওয়ার জন্য একটি মেসেজ দেওয়া হবে। এ ছাড়া এখন থেকে রেস্টুরেন্টের রেটিং ছাড়াও ব্যবহারকারীর পছন্দের সঙ্গে সেটি কতটুকু মিলে, তা দেখানো হবে। ফিচারটির নাম ‘ইয়োর ম্যাচ’।

সবশেষে গুগল ম্যাপসেও যুক্ত করা হয়েছে অগমেন্টেড রিয়ালিটি। এখন থেকে কোনো কিছু খোঁজার জন্য ম্যাপস ব্যবহার করলে সরাসরি ক্যামেরার মাধ্যমে চারপাশের দৃশ্যের ওপরেই তীরচিহ্ন দিয়ে দিকনির্দেশনা দেওয়া হবে। ফিচারগুলো চলতি বছরের গ্রীষ্মের মধ্যেই সবার কাছে পৌঁছে যাবে।

ধন্যবাদ।