লাই-ফাই বা  লাইট ফিডেলিটি নয়া টেকনোলজি বাজারে আসছে । যার গতি এক সেকেন্ডে ১ জিবি।

রেগুলার ওয়াই-ফাই-এর থেকে যার স্পিড ১০০ গুণ বেশি।

fastest-li-fi-internet

জনপ্রিয় তারবিহীন ইন্টারনেট সংযোগ ওয়াই-ফাইয়ের জায়গা দখল করতে আসছে নতুন এক প্রযুক্তি। ওয়াই-ফাইয়ের চেয়ে ১০০ গুণ বেশি দ্রুতগতির ইন্টারনেট সংযোগ দেবে এটি।

Li-Fi বা Light Fidelity নামের এই প্রযুক্তির মাধ্যমে গিগাবাইট পার সেকেন্ড গতির ইন্টারনেট সেবা পাওয়া যাবে।

লাই-ফাই প্রযুক্তি পেতে লাগবে একটি মান সম্পন্ন এলইডি বাল্ব, ইন্টারনেট সংযোগ এবং ফটো এডিটর। এর মাধ্যমে ডাটা আদান-প্রদান হয় খুবই ক্ষুদ্র সময় বা ন্যানো সেকেন্ডের মধ্যে।

২০১১ সালে প্রথম এই প্রযুক্তি আবিষ্কৃত হয়। এর পর থেকেই চলছে লাই-ফাই প্রযুক্তির নানা রকম উন্নয়নের কাজ।

লাই-ফাই ব্যবহার করে গবেষকরা তাদের ল্যাবে ২২৪ গিগাবাইট প্রতি সেকেন্ড পর্যন্ত গতিতে ডাটা ট্রান্সফার করতে সক্ষম হয়েছেন।

Li-Fi-technology

লাই-ফাই প্রযুক্তির জনক স্কটল্যান্ডের এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হ্যারাল্ড হ্যাস বলেন, লাই ফাই একটি উচ্চ গতিসম্পন্ন তারবিহীন ইন্টারনেট সংযোগ পদ্ধতি।

এটি মূলত একটি ভিজিবল লাইট কমিউনিকেশন( ভিএলসি) পদ্ধতি যা এলইডি বাল্বের মাধ্যমে কাজ করবে।

সনাতন ওয়াই ফাই এর চেয়ে লাই ফাই একশ গুণ বেশি গতিসম্পন্ন এবং ওয়াই ফাইয়ের চেয়ে দশ গুণ কম খরচ পড়বে এ সংযোগে।

তিনি বলেন, মূলত এটি অপিটিক্যাল ওয়্যারলেস কমিউনিকেশনস (ওএমসি) পদ্ধতি। লাই-ফাইয়ের সংযোগ ওয়াই-ফাইয়ের চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ।

পাসওয়ার্ড চুরি করে আর কেউ সেটা ব্যবহার করতে পারবে না।

হ্যারাল্ড হ্যাস বলেন, ঘরে ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে যুগান্তকারী প্রযুক্তি হতে পারে লাই-ফাই।

হয়ত ভবিষ্যতে দেখা যাবে, বাসায় ব্যবহৃত এলইডি লাইট একই সঙ্গে ঘরকে আলোকিত এবং ঘরের ভেতরে লোকাল নেটওয়ার্ক তৈরিতে অবদান রাখছে।