টেকলার্ন বিডির পক্ষ থেকে সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়ে শুরু করছি।
আর নয় মোবাইলে আগুন ধরার ঝামেলা। পাওয়ার ব্যাংক বা মোবাইল চার্জারের দিন ফুরিয়ে আসছে। তৈরী হতে যাচ্ছে বিশ্বের প্রথম ব্যাটারিবিহীন মোবাইল ফোন। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা নতুন এই মোবাইল তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।  আশপাশের আলোকতরঙ্গের বা রেডিও সিগন্যাল এর সাহায্যেই এই মোবাইলে ফোন চালু থাকবে।

মোবাইলের প্রোটোটাইপ তৈরি করে এই সংক্রান্ত গবেষণাপত্রটি সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে প্রসিডিংস অব দ্য অ্যাসোসিয়েশন ফর কম্পিউটিং মেশিনারি অন ইন্টারঅ্যাকটিভ, মোবাইল, ওয়্যারেবল অ্যান্ড ইউবিকুইটাস টেকনোলজিস নামক জার্নালে। গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, প্রোটোটাইপটি ব্যবহারে  মাত্র সাড়ে ৩ মাইক্রোওয়াট পাওয়ার খরচ করতে হবে ।এর জন্য ব্যাটারির প্রয়োজন নেই। অ্যাম্বিয়েন্ট আলোকতরঙ্গের বা রেডিও সিগন্যাল মাধ্যমে এই পাওয়ার নিয়ে মোবাইলটি ।

গবেষক দলের বিজ্ঞানী শ্যাম গোল্লাকোটা বলেন, এই প্রথম আমরা এমন একটি মোবাইল তৈরি করেছি যা প্রায় জিরো-পাওয়ার ব্যবহার করে। এতে স্কাইপ-এর সাহায্যেই কল রিসিভ বা কথাবার্তাও বলা যাবে।
প্রচলিত ব্যাটারি নয়, এই মোবাইল চলবে আশপাশের আলোকতরঙ্গের বা রেডিও সিগন্যালের মতো অপ্রচলিত উপাদানের সাহায্যে। আলোকতরঙ্গের বা রেডিও সিগন্যাল থেকে শক্তি সঞ্চয় করে মোবাইলের বেস স্টেশন থেকে ৪০ ফুট দূর পর্যন্ত কথাবার্তা বলা যাবে।  আলোকতরঙ্গের সাহায্যে মোবাইলটি চলবে তা বেস স্টেশনের ৬০ ফুট দূর পর্যন্ত ফোন রিসিভ ও কল করা যাবে।

ব্যাটারি ছাড়া কীভাবে মোবাইল ফোনটি কাজ করবে এ প্রসঙ্গে গবেষকরা জানিয়েছেন, কারো সঙ্গে কথা বলতে হলে মাইক্রোফোনের শব্দতরঙ্গগুলো ব্যবহার করবে মোবাইল। এরপর শব্দতরঙ্গগুলোকে শ্রবণযোগ্য সাংকেতিক সিগন্যাল বদলে ফেলে প্রতিফলন ঘটাবে। এর উল্টোটা হবে কল রিসিভের সময়। ফোনের স্পিকারে আসা সাঙ্কেতিক রেডিও সিগন্যালগুলোকে শব্দতরঙ্গে বদলে নেবে মোবাইলটি। এই মোবাইলটির জন্য কয়েক দিন অপেক্ষা করতে হবে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

ধন্যবাদ।