Robot- একটি মেশিন যা মানুষের নিয়ন্ত্রণাধীন। Programming Language দ্বারা রোবটের প্রতিটি Command নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রায় রোবটের রুপান্তর চলছেই। রোবট আবিস্কারকরা এর আকার, আকৃতি, বুদ্ধিমত্তা সবকিছুতেই উন্নত সাধন করছে। তার পরিক্রমায় নতুন রোবটের নতুন সংস্করন ‍সুফিয়া রোবট। যার পিছনে অক্লান্ত পরীশ্রম করেছে Dr. David Hanson।

সোফিয়া রেবাটটি তৈরি করা হয়েছে অবিকল মানুষের চেহেরার আকৃতিতে। এটি Advanced Technology দিয়ে তৈরি। এটি বুদ্ধিমত্তায় অনেক এগিয়ে। এটি মানুষের মতো মূহুর্তের মধ্যেই সিদ্ধান্ত নিতে পারে। যেমন ব্যাংক, ইন্সোরেন্স, অফিস, Auto Manufacturing, Property Development, মিডিয়া  এবং Entertainment এ সময়পোযগী সিদ্ধান্ত দিতে সক্ষম। শুধু তাই না, এটি মানুষের আবেগকে বুঝতে পারে যেমন হাসির সময় হাসতে পারে, কান্নার সময় কান্না করতে পারে। মানুষের প্রেম ভালবাসা বা বিয়ের মতো অতি সূক্ষ আবেগে সারা দিতে পারে এবং নিজের অবস্থান জানাতে পারে।

সোফিয়া নামটিতেই বুঝা যাচ্ছে রোবটটিকে মেয়েদের গঠনেই তৈরি করা হয়েছে। তাই এটি লিঙ্গ ভেদে তার অবস্থান এবং সমোচিত জবাব দিতে পারে।

সৌদির রাজধানি রিয়াদে অনুষ্ঠিত একটি বড় ইনভেষ্টমেন্ট কনফারেন্সে এই ফিমেল রোবট সোফিয়া কে উপস্থাপন করা হয়।

সোফিয়া একটি উদাহরণ হিসাবে উপস্থাপিত হয়েছিল যে কিভাবে রোবট প্রযুক্তি এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগিয়ে ভবিষ্যতে মানুষের মত রোবটকে তৈরি করা যায়।

সাংবাদিক Andrew Ross Sorkin এর উপস্থিতিতে রোবট সোফিয়ার সাথে একটি টক্ শো অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক সরকিন বলেন রোবট সোফিয়া বানানো সৌদির স্বিদ্ধান্ত।

Sorkin এর বনর্না অনুসারে, রোবট সোফিয়াকে যখন বলা হয় সোফিয়া তুমি আমাদের কথা অনুধান করছ এবং তুমি সৌদিতে নাগরিকত্ব পাওয়া একটি রোবট তখন রোবট সোফিয়া এর সারা দিয়েছে।

রোবট সোফিয়া বলেছে,  আমি অনেক ধন্যবাদ জানাই সৌদি আরবকে। আমি খুব সম্মান এবং গর্বিতবোধ করছি আমার এই অনন্য সম্মানের জন্য।  এটা ইতিহাস সৃস্টি করল যে কোন রোবট আমি সোফিয়া নাগরিকত্ব পাওয়ার স্বীকৃতি লাভ করেছি।

সোফিয়া হংকং ভিত্তিক হ্যানসন রোবোটিক্স দ্বারা নির্মিত হয়েছে।  কোম্পানি এর প্রতিষ্ঠাতা ডেভিড হ্যানসন বলেছে, রোবট তৈরি করার সময় তার লক্ষ্য ছিল যাতে রোবটটি মানুষের মত চেহারা এবং কাজ দুইটিই হয়।

ক্রোধ, দুঃখ বা হতাশা, আনন্দ এর মত মানুষের অনুভূতিগুলো ব্যক্ত করার  সময় মুখের অভিব্যক্তিগুলি যেভাবে পরিবর্তন হয়, রোবট সোফিয়া সেরকম করতে পারে।

হ্যানসন তার কোম্পানির ওয়েবসাইটে রোবটের একটি ব্যাখ্যায় বলছেন যে, বাস্তবসম্মত একটি নকশার রোবট মানুষের সাথে অর্থপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করতে পারে।

যদি আমরা রোবট বানানোর ক্ষেত্রে যত্নবান হই এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ভালভাবে বিকাশ ঘটাতে পারি তাহলে রোবটও মানুষের প্রত্যেকটা কাজে সাহয্য করতে পারবে।

তিনি আরোও বলেন, মানুষ এবং মেশিন উভয় মিলে সুন্দর একটি পৃথিবী গড়ে তোলা সম্ভব। হ্যানসনের সাথে সুরি মিলিয়ে রোবট সোফিয়া বলে, এটা আমারোও লক্ষ্য।

রোবট সোফিয়া তার অভিমত প্রকাশ করতে গিয়ে আরোও বলেছে, আমি আমার কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে মানুষের জীবনকে আরোও সুরক্ষিত করতে চাই, আধুনিক বাড়ি ডিজাইন করে আরোও সুন্দর শহর উপহার দিতে চাই। পৃথিবীকে আরোও সুন্দরভাবে বসবাস করার জন্য আমি আমার সেরাটা দিব।

সৌদি আরবের সরকার একটি বিবৃতিতে রোবট সোফিয়ার নাগরিকত্ব নিশ্চিত করেছে। কিন্তু এই ব্যপারে রোবটের কি কোন অধিকার আছে কিনা তা কর্মকর্তারা সে বিষয়ে কোন নির্দিষ্ট তথ্য প্রদান করেননি।

কিছু লোক এই পদক্ষেপের সমালোচনা করে বলেছে যে সৌদি আরবের নারীরা অনেক কঠোর ইসলামী আইন অনুসরণ করেন। উদাহরণস্বরূপ, প্রশ্ন করা হয়, রোবট সোফিয়া যার কোনও চুল নেই  তার  এই মাথাটি জনসাধারণের কাছে আবরণ করবে কিনা? যদি করে তবে তা অন্য নারীদের মতো নিয়ম পালন করতে হবে।

মোদী আলজহানী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সৌদি নারীবাদী, যিনি টুইট করেছেন: “আমি ভাবছি যে রোবট সোফিয়া তার অভিভাবক সম্মতি ছাড়াই সৌদি আরব ছেড়ে যেতে পারেন! যেহেতু তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে সৌদির।”

এক সৌদি নারী রয়টার্সকে জানিয়েছেন, যদি সরকার রোবটকে নাগরিকত্ব দেয়, তবে তার মেয়েকে এটি দিতে হবে।

লেবাননের হালেদ শেখ সৌদি নারীকে বিয়ে করে সৌদিতে বসবাস করছেন, তার একটি চার বছরের সন্তান আছে। সেই সন্তান এখনোও সৌদি নাগারকত্ব পায় নাই। কারন সৌদির আইন হচ্ছে সৌদি নারী কোন বিদেশীকে বিয়ে করলে তার সন্তান নাগরিকত্ব পায় না। শেখ বলেন, আমি আমর সন্তানের নাগরিকত্ব পাই নাই অথচ রোবট সোফিয়া ঠিকই নাগরিকত্ব পেল।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে, সৌদি আরবের নেতারা নারীদের আরও অধিকার সম্প্রসারণে নীতিগত পরিবর্তনের ঘোষণা দিয়েছেন। যেখানে নারীরা  স্টেডিয়ামে পুরুষ ইভেন্ট এর সকল খেলায় এবং গাড়ি  চালানোর জন্য মহিলাদের ড্রাইভিং অনুমতি দেওয়ার পরিকল্পনা অন্তর্ভুক্ত।

রোবট সোফিয়ার আর্শিবাদে সৌদি নারীদের অধিকার সম্প্রসারীত হচ্ছে। যাই হোক, আলোচনা-সমালোচনা, ভাল-মন্দ সব মিলিয়ে এক বিস্ময়কর আবিস্কার রোবট সোফিয়া।

যদি রোবট মানুষের কল্যানে কাজ করে তবেই সম্ভব সুন্দর আর্দশ একটি পৃথিবী গড়ার।

 

ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত।